۱ اردیبهشت ۱۴۰۳ |۱۱ شوال ۱۴۴۵ | Apr 20, 2024
দ্রুত কবুল হওয়ার দুআ
দ্রুত কবুল হওয়ার দুআ

হাওজা / দু'আ-ই মুকাতিল ইবনে সুলাইমান: দ্রুত কবুল হওয়ার দুআ : এ দুআ ইমাম সাজ্জাদ যাইনুল আবিদীন ( আ) থেকে বর্ণিত । এ দুআ দ্রুত কবুল হওয়ার দুআ সমূহের অন্তর্ভুক্ত।

অনুবাদ: মুহাম্মদ মুনীর হুসাইন খান

হাওজা নিউজ এজেন্সি রিপোর্ট অনুযায়ী, দু'আ-ই মুকাতিল ইবনে সুলাইমান: দ্রুত কবুল হওয়ার দুআ : এ দুআ ইমাম সাজ্জাদ যাইনুল আবিদীন ( আ) থেকে বর্ণিত । এ দুআ দ্রুত কবুল হওয়ার দুআ সমূহের অন্তর্ভুক্ত।

মুকাতিল ইবনে সুলাইমান হযরত মুহাম্মদের ( সা ) পবিত্র আহলুল বাইতের (আ) বারো মাসূমের ৪র্থ মাসুম ইমাম আলী ইবনুল হুসাইন যাইনুল আবিদীন (আ) থেকে রিওয়ায়ত করেছেন এবং বলেছেন : যে কেউ এ দুআ ১০০ বার পাঠ করবে তার দুআ ও প্রার্থনা মুস্তাজাব ( কবুল ও সাড়া দেওয়া) হবে । দুআটি :

বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম্

بسم الله الرحمن الرحیم

إِلَهِی کَیْفَ‏ أَدْعُوکَ‏ وَ أَنَا أَنَا وَ کَیْفَ أَقْطَعُ رَجَائِی‏ مِنْکَ‏ وَ أَنْتَ أَنْتَ

إِلَهِی إِذَا لَمْ أَسْأَلْکَ فَتُعْطِیَنِی فَمَنْ ذَا الَّذِی أَسْأَلُهُ فَیُعْطِیَنِی

إِلَهِی إِذَا لَمْ أدعوک [أَدْعُکَ‏] فَتَسْتَجِیبَ لِی فَمَنْ ذَا الَّذِی أَدْعُوهُ فَیَسْتَجِیبَ لِی

إِلَهِی إِذَا لَمْ أَتَضَرَّعْ إِلَیْکَ فَتَرْحَمَنِی‏ فَمَنْ ذَا الَّذِی أَتَضَرَّعُ إِلَیْهِ فَیَرْحَمَنِی

إِلَهِی فَکَمَا فَلَقْتَ الْبَحْرَ لِمُوسَى عَلَیْهِ السَّلَامُ وَ نَجَّیْتَهُ

أَسْأَلُکَ أَنْ تُصَلِّیَ عَلَى مُحَمَّدٍ وَ آلِ مُحَمَّدٍ وَ أَنْ تُنَجِّیَنِی مِمَّا أَنَا فِیهِ

وَ تُفَرِّجَ عَنِّی فَرَجاً عَاجِلًا غَیْرَ آجِلٍ بِفَضْلِکَ وَ رَحْمَتِکَ یَا أَرْحَمَ الرَّاحِمِینَ

হে আমার ইলাহ ( উপাস্য) ! আমি আপনাকে কীভাবে ডাকব ও প্রার্থনা করব অথচ আমি আমি ( আমি আপনার কাছে অতিতুচ্ছ নগণ্য মখলূক ) এবং আমি কিভাবে আপনার থেকে আমার আশা ছিন্ন ও কর্তন ( কাত ) করব অথচ আপনি আপনি (আপনি সুমহান সুউচ্চ দানশীল উদার সত্ত্বা ও খালিক [স্রষ্টা ] ) ?!!

হে আমার ইলাহ! আমি যদি আপনাকে না ডাকি (আপনার কাছে প্রার্থনা না করি ) যাতে আপনি আমাকে দেন তাহলে আমি কাকে ডাকব যাতে সে আমাকে দান করে ?!!

হে আমার ইলাহ ! আমি যদি আপনার কাছে কায় - মন - বাক্যে একান্ত নিভৃতে রোদন ও ক্রন্দন না করি যাতে আপনি আমার প্রতি দয়া প্রদর্শন করেন তাহলে আমি কার কাছে কায় - মন - বাক্যে একান্ত নিভৃতে রোদন ও ক্রন্দন করে আমার আর্জি পেশ করব যাতে সে আমার প্রতি দয়া পরবশ হয় ?!!

হে আমার ইলাহ ! যেমনভাবে আপনি হযরত মূসা ( আ) -এর জন্য দরিয়া ( সাগর ) বিদীর্ণ করে তাঁকে নাজাত ( মুক্তি) দিয়েছিলেন ( ফেরআউনের হাত থেকে) ঠিক তেমনি আমি আপনার কাছে হযরত মুহাম্মদ এবং তাঁর পবিত্র আলের ( আহলুল বাইত -আ - )ওপর দরূদ ও সালাত প্রেরণ এবং আমি যে অবস্থায় আছি তা থেকে আমাকে নাজাত ও মুক্তি দেওয়ার জন্য প্রার্থনা করছি

আর ( আমি প্রার্থনা করছি আপনার কাছে যাতে ) আপনি আপনার রহমত ( দয়া ) ও ফযল (কৃপা ) দিয়ে আমাকে অনতিবিলম্বে তাৎক্ষণিক প্রশস্ততা ও স্বাচ্ছন্দ দান করেন হে সবচেয়ে দয়ালু ( ইলাহ ) !

تبصرہ ارسال

You are replying to: .