۸ خرداد ۱۴۰۱ |۲۷ شوال ۱۴۴۳ | May 29, 2022
মাওলানা গোলাম মুস্তাফা নাজাফী
মাওলানা গোলাম মুস্তাফা নাজাফী

হাওজা / হযরত নবী করীম (সাঃ) আয়েশার উপস্থিতিতে বসে ছিলেন, এমন সময় এক ইহুদী প্রবেশ করল। আর নবী করীম (সাঃ) কে সালামুন আলাইকুমের পরিবর্তে বলল: "আলসামু আলিকুম" অর্থাৎ "তোমার মৃত্যু হোক"।

মাওলানা গোলাম মুস্তাফা নাজাফী

হযরত নবী করীম (সাঃ) আয়েশার উপস্থিতিতে বসে ছিলেন, এমন সময় এক ইহুদী প্রবেশ করল। আর নবী করীম (সাঃ) কে সালামুন আলাইকুমের পরিবর্তে বলল: "আলসামু আলিকুম" অর্থাৎ "তোমার মৃত্যু হোক"।

কিছু সময় পর আরেকজন এসে , " সালামুন আলাইকুমের পরিবর্তে বলল: "আলসামু আলিকুম" রাসুল (সাঃ) বুঝতে পারলেন, এটা কোন দুর্ঘটনা নয়, এটা ছিল মহানবী (সাঃ)-কে কথা দ্বারা হয়রানির করার পরিকল্পনা,

আয়েশা এসব সুনে খুবই রেগে গেলেন, এবং চিৎকার করে বললেন "তোমার মৃত্যু হোক "

মহানবী (সাঃ) সুনে বললেনঃ

“হে আয়েশা! ওদের উপলক্ষে কটু কথা বলো না, তুমি কি জানো কটু বার্তা যদি মূর্তি হতো, তার মুখমন্ডল কুৎসিত ও কুরূপ হতো.

সুতরাং স্নিগ্ধতা, নম্রতা ও ধৈর্য্যতা সর্ব জিনিসকে সুন্দর ও সুশোভিত করে তোলে, আর অপরিস্কার সৌন্দর্যহীন ও সুদর্শনহীন করে তোলে, "তুমি এতো রাগান্বিত ও ক্রোদ্ধিত কেন?"

আয়েশা বললেনঃ

হে আল্লাহর রাসূল (সাঃ) আপনি কি দেখতে পাচ্ছেন না, এরা আপনার উদ্দেশ্য নির্লজ্জতা পূর্ন ও অশ্লীলতা পূর্ণ শব্দ ব্যবহার করছে ,সালামুন আলাইকুমের পরিবর্তে "আলসামু আলিকুম" বলছে, নবী করীম (সাঃ) বললেন: তুমি কি দেখেছো না, আমিও তাদের উত্তরে বললাম, "আলাইকুম" (আপনার জন্য ও) ওদের জন্য এতটাই যথেষ্ট আছে,

(ওস্তাদ মোতাহহারী, দাস্তানে রাস্তান, খন্ড ১, পৃ ১৬৯_১৭০)

تبصرہ ارسال

You are replying to: .
2 + 12 =